Friday , 26 February 2021
আপডেট
Home » রাজনীতি » জনগণকে ধোঁকা দিতে রোহিঙ্গা চুক্তি: আমির খসরু
জনগণকে ধোঁকা দিতে রোহিঙ্গা চুক্তি: আমির খসরু

জনগণকে ধোঁকা দিতে রোহিঙ্গা চুক্তি: আমির খসরু

নিজস্ব প্রতিবেদক: রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানোর বিষয়ে সম্পাদিত চুক্তির সমালোচনা করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, নির্বাচনকে সামনে রেখে জনগণকে ধোঁকা দিতে এ চুক্তি করা হয়েছে। শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।
আগামী নির্বাচন নিয়ে জনগণ সরকার ও কমিশনকে পর্যবেক্ষণ করছে উল্লেখ করে আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, জবাবদিহিতার বাইরে থেকে আগামী দিনে কোন নির্বাচন সম্ভব নয়।
আজকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশকে স্বাগত জানিয়ে আমির খসরু বলেন, রাজনৈতিক সমাবেশ করার অধিকার সবারই আছে। কিন্তু বিরোধি দলের সমাবেশে কোন অনুমতি পাওয়া যায় না। কিন্তু আজকে সমাবেশে সরকারি কর্মকর্তা, কর্মচারী এবং শিক্ষার্থীদের আসতে বাধ্য করা হয়েছে তার সমালোচনা করেন তিনি।
তিনি বলেন, বিএনপির সবাবেশে আ,লীগ রাস্তাঘাট বন্ধ করে দিয়েছিলো। বিভিন্ন ভাবে বাধা দিয়েছিলো। এর পর ও জনসমুদ্রের ঢেউ ঠেকাতে পারে নাই। এরপরও দীর্ঘ অনেক পথ পায়ে হেঁটে সাধারণ জনগণ সমাবেশে এসেছেন।
তিনি বলেন, আ,লীগের জনসভার জন্য কোন অনুমতির প্রয়োজন হয় নি। আর তাদের জনসভায় কেমন মানুষ হয়েছে সেটা আমরা দেখেছি এবং এই সমাবেশে যারা উপস্থিত হয়েছেন তারা সব সরকারী কমর্কতাও কমর্চারীরা।
আমির খসরু বলেন, সংসদ বহাল রেখে আগামী নিবার্চন হবে না। তিনি বলেন, আ,লীগ রোহিঙ্গাদের নিয়ে ষড়যন্ত্র করছে, তারা নিবাচর্নের আগে তাদের ফেরত দিতে চায় না।
তিনি আরো বলেন, আইনমন্ত্রী বলেছেন ১/১১ সময় খালেদা জিয়ার দর্নীতি ধরা পড়েছে, আমি তার কথার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।
বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য বলেন, খালেদা জিয়ার নামে যে কয়টা মামলা ছিলো তার থেকে শেখ হাসিনার নামে মামলা বেশি ছিলো। নিজেদের অন্যায় কখনও আওয়ামী লীগ দেখে না।
তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্বে বিভিন্ন মামলা দিয়ে ফসল ঘরে তুলতে পারবেনা সরকার। এর জন্য তাদেরকে চরম উচ্চ মূল্য দিয়ে ক্ষমতা থেকে নামতে হবে।
পরামর্শ বৈঠকে দেশ বাচাঁও মানুষ বাচাঁ আন্দোলনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপনের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন, গণ স্বাস্থের সভাপতি ড, জাফরুউল্লাহ চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সুকুমার বড়ুয়া ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক ড. এস. এম. হাসান তালুকদার প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*