Saturday , 5 December 2020
আপডেট
Home » খেলাধুলা » জাতীয় লিগের হ্যাটট্রিক শিরোপা জিতলো খুলনা
জাতীয় লিগের হ্যাটট্রিক শিরোপা জিতলো খুলনা

জাতীয় লিগের হ্যাটট্রিক শিরোপা জিতলো খুলনা

ক্রীড়া প্রতিবেদক: ঢাকা বিভাগকে হারিয়ে জাতীয় লিগের হ্যাটট্রিক শিরোপা জিতলো খুলনা বিভাগ। টানা চারবার শিরোপা জয়ের রেকর্ড আছে কেবল রাজশাহীর। শনিবার শিরোপা জিতে এই রেকর্ডের আরও কাছে চলে গেল খুলনা। বিকেএসপির ম্যাচে ঢাকাকে ইনিংস ও ৪৯ রানে হারিয়ে ম্যাচ জিতে নেয় খুলনা। আর তাতেই ২৩ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে থেকে টানা তৃতীয় শিরোপার স্বাদ পায় দলটি। সব মিলিয়ে রেকর্ড ষষ্ঠবারের মতো শিরোপা জিতলো খুলনা।
এই মৌসুমে প্রতিটি রাউন্ডেই প্রভাব বিস্তার করে খেলেছে খুলনা। হবেই না কেন, খুলনার একাদশ একরকম জাতীয় দলের মতোই! শেষ রাউন্ডে এই বিভাগের হয়ে খেলা একাদশে আছেন এনামুল, সৌম্য, মিথুন, রুবেল, রাজ্জাক, মিরাজের মতো তারকারা। ছিলেন জাতীয় দলে খেলা একসময়কার গুরুত্বপূর্ণ মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান তুষার ইমরান, যার কিনা এই রাউন্ড খেলতে নামার আগে নামের পাশে ছিল ৯,৮৫৭ রান। সেই সঙ্গে আরেক বিস্ফোরক ব্যাটসম্যান জিয়াউর রহমান তো আছেনই। এই একাদশের একজনেরই কেবল জাতীয় দলের হয়ে খেলার অভিজ্ঞতা নেই। তিনি মেহেদী হাসান। তারপরও তার ব্যাট থেকে প্রথম ইনিংসে এসেছে ১৭৭ রান। এমন সব খেলোয়াড় যেন দলটিতে, শিরোপা জেতা তো তাদেরকেই মানায়!
জাতীয় দলের ব্যস্ততার কারণে আগের রাউন্ডগুলো খেলতে পারেননি মেহেদী হাসান মিরাজ। তবে শেষ রাউন্ডে ফিরেই তিনি তার স্পিন জাদু দেখান। তার স্পিন ভেলকিতেই ম্যাচ জিতেছে খুলনা। এই ম্যাচে ঢাকার ২০ উইকেটেরে ১০টিই মিরাজের দখলে। সব মিলিয়ে দুই ইনিংসে ১১৩ রান খরচ করে তার শিকার ১০ উইকেট। দুর্দান্ত এই পারফরম্যান্সে ম্যাচসেরার পুরস্কারটাও জিতেছেন তরুণ এই অলরাউন্ডার।
টস হেরে আগে ব্যাটিং করা ঢাকা মিরাজের ঘূর্ণিতে ১১৩ রানেই অলআউট হয়ে যায়। মিরাজের ৭ উইকেট পাওয়ার দিনে ঢাকার ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সর্বোচ্চ রান রকিবুলের (২৮)। এরপর শুরু হয় খুলনার ব্যাটসম্যানদের মিশন। এনামুল হক বিজয়ের ডাবল সেঞ্চুরি (২০২) ও মেহেদী হাসানের সেঞ্চুরি (১৭৭) ওপর ভর করে খুলনা ৪৫৯ রান সংগ্রহ করে।
৩৪৬ রানে পিছিয়ে থেকে ঢাকা তাদের দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে। প্রথম ইনিংসের তুলনায় ঢাকার দ্বিতীয় ইনিংস ভালো হলেও প্রতিপক্ষকে হারাতে কিংবা ম্যাচটি ড্র করতে এটা যথেষ্ট ছিল না। রকিবুলের ৫৮ ও তাইবুর পারভেজের ৫১ রানের ওপর ভর করে ঢাকা শেষ পর্যন্ত ২৯৭ রানে থামে। আর তাতেই ইনিংস ও ৪৯ রানে জয়ে শিরোপা নিশ্চিত হয়ে যায় খুলনার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*