Thursday , 29 October 2020
আপডেট
Home » খেলাধুলা » মারিয়া-শামসুন্নাহারদের নিয়ে কাজী মো.সালাউদ্দিনের মহাপরিকল্পনা
মারিয়া-শামসুন্নাহারদের নিয়ে কাজী মো.সালাউদ্দিনের মহাপরিকল্পনা

মারিয়া-শামসুন্নাহারদের নিয়ে কাজী মো.সালাউদ্দিনের মহাপরিকল্পনা

ক্রীড়া প্রতিবেদক : ভারতকে হারিয়ে সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ চ্যাম্পিয়নশিপে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় গৌরব অর্জন করেছে বাংলাদেশের মেয়েরা । এই সাফল্যের জন্য আমাকে বা বাফুফে নয়, মেয়েদের সফলতা বেশি করে প্রচার করুন। ধন্যবাদটা ওদেরই প্রাপ্য। আপনারা দেখেছেন, ওরা ৯০ মিনিট খেলে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। মাঠের এই লড়াইয়ের জন্য গত দুই বছর ধরে নিজেদের তিলে তিলে তৈরি করেছে। অনেক পরিশ্রম ও কষ্ট করেছে মেয়েরা।
সোমবার বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন ভবনে সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ চ্যাম্পিয়নশিপে শিরোপাজয়ী মেয়েদের আনুষ্ঠানিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন বাফুফে সভাপতি কাজী মো. সালাউদ্দিন। বক্তব্যের শুরুতেই মেয়েদের অভিনন্দন জানিয়ে বাফুফে সভাপতি বলেন, ওরা সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ ফুটবলের প্রথম আসরেই চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। তাই মেয়েদের ধন্যবাদ। পাশাপাশি বাফুপে মহিলা ফুটবল কমিটি, টেকনিক্যাল কমিটি, কোচে’স স্টাফ, দর্শক এবং গণমাধ্যমকে ও ধন্যবাদ।
কাজী মো.সালাউদ্দিন আরও বলেন, মেয়েদের এই সাফল্য হচ্ছে গত কয়েক বছরের প্রশিক্ষণ ক্যাম্পের ফসল। একটা পর্যায়ে তারা এসেছে। এখন তাদের যেতে হবে আরেকটি ধাপে। এজন্য তাদের জন্য আমরা একটি চার বছর মেয়াদী পরিকল্পনা করেছি। চার বছরের এই মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নে দরকার ১২ কোটি টাকা। সেই দিকে দৃষ্টি আকর্ষণ করে তিনি বলেন, ক্যাম্প পরিচালনার জন্য প্রতি বছর লাগবে ৩ কোটি টাকা। তাই চার বছরের জন্য ১২ কোটি টাকা সংগ্রহের চেষ্টা করছি। এটা একা আমার পক্ষে সম্ভব নয়। এ জন্য সরকার ও কর্পোরেট হাউসগুলোকে এগিয়ে আসতে হবে। আমি তাদের এগিয়ে আসার আহবান জানাচ্ছি।
এই মেয়েদের অর্থিক স্বচ্ছলতার জন্য আগামী বছর থেকে মেয়েদের ফুটবল লিগ চালু করার ঘোষণা দেন সালাউদ্দিন। তিনি বলেন, ইতোমধেই এ নিয়ে আমরা কাজ শুরু করেছি। কয়েকটি ক্লাব আগ্রহ প্রকাশ করেছে খেলতে। আমরা কোন ক্লাবকে এ ব্যাপারে কোন চাপ দেব না। যারা চায়, তাদের নিয়েই লিগ হবে। সেটা সংখ্যায় কম হলেও। সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ উপলক্ষে বাফুফে ভবনে দীর্ঘ দিন ধরে আবাসিক ক্যাম্পে রয়েছে মেয়েরা। শিরোপা জয়ের মধ্যে দিয়ে আপাতত অবসর। তাই মেয়েরা ১৫ দিনের ছুটি দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার থেকেই ছুটিতে গ্রামের বাড়িতে চলে যাচ্ছে মেয়েরা। আগামী ১০ জানুয়ারি ক্যাম্পে ফিরবে তারা।
২০২০ সালে বসবে ফিফা অনূর্ধ্ব-২০ নারী বিশ্বকাপের আসর। সেই দিকে নজর কাজী সালাউদ্দিনের। তিনি বলেন, আমাদের অনূর্ধ্ব-১৬ দল এশিয়ার সেরা আটের মধ্যে আসতে পেরেছে। সেরা তিনের লক্ষ্য নিয়ে আমরা পরিকল্পনা করেছি। ১০ জানুয়ারি মেয়েরা আবার ক্যাম্পে উঠবে। ২৩ জনের সঙ্গে যোগ দেবে আরও ২৭ জন। ৫০জন মেয়েকে নিয়ে আমরা টানা চার বছর ক্যাম্প চালাবো। অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে বিজয়ী দলের অধিনায়ক মারিয়া মান্দা বলেন, সালাউদ্দিনকে স্যারকে ধন্যবাদ। আমরা সালাউদ্দিন স্যারকে ট্রফি উপহার দিতে চেয়েছিলাম। সফল হয়েছি। এ সময় মারিয়া এবং সহ-অধিনায়ক আঁখি খাতুন সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ট্রফিটি তুলে দেয় বাফুফে সভাপতির হাতে। সেটি হাতে নিয়ে সালাউদ্দিন বলেন, তোমাদের ধন্যবাদ। এই ট্রফিটি আমি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উপহার দিতে চাই।
অনুষ্ঠিানে আরও উপস্থিত ছিলেন বাফুফে মহিলা ফুটবল কমিটির চেয়ারম্যান মাহফুজা আক্তার কিরণ, সাধারণ সম্পাদক আবু নাইম সোহাগ, বিজয়ী দলের কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন, অধিনায়ক মারিয়া মান্দাসহ অন্যান্য কোচিং স্টাফ এবং অন্য ফুটবলাররা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*