Friday , 26 February 2021
আপডেট
Home » রাজনীতি » ৫ জানুয়ারি সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশ করবে বিএনপি : রিজভী
৫ জানুয়ারি সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশ করবে বিএনপি : রিজভী
বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী

৫ জানুয়ারি সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশ করবে বিএনপি : রিজভী

নিজস্ব প্রতিবেদক: গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ উপলক্ষে আগামী ৫ জানুয়ারি বিএনপির উদ্যোগে ঢাকায় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ এবং দেশব্যাপী জেলা, মহানগর, উপজেলা পর্যায়ে কালো পতাকা মিছিল করবে বিএনপি । সোমবার দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এ ঘোষণা দেন। তিনি বলেন, গণতন্ত্র হত্যা দিবস উপলক্ষে আগামী শুক্রবার বিএনপির উদ্যোগে উল্লিখিত কর্মসূচি পালন করা হবে।
রিজভী বলেন,‘এক আইন, এক প্রভু হলে স্বাধীনতা ও গণতন্ত্রের পক্ষে ভয়ঙ্কর সঙ্কট’। বাংলাদেশের গণতন্ত্র লাল দেয়ালের অভ্যন্তরে বন্দী। গণতন্ত্রে অপরিহার্য শর্ত হলো বিরোধী দল। প্রধান বিরোধী দল বিএনপি সরকারী নির্যাতনে আক্রান্ত। গেল বছরেও জনগণের অগ্রযাত্রাকে ক্ষমতাসীন গোষ্ঠী বলপূর্বক প্রতিহত করেছে। গণতন্ত্রে স্বীকৃত সভা-সমাবেশকে তারা বানচাল করেছে। কন্ঠরোধ করার জন্য গণমাধ্যম থেকে শুরু করে নানা চিন্তা, মত ও বিশ্বাসের মানুষের ওপর নেমে এসেছে সরকারের নানা প্রকার আক্রমণের আঘাত।
রিজভী আরো বলেন, বিএনপির শীর্ষ পর্যায় থেকে শুরু করে তৃণমূল পর্যন্ত নেতাকর্মীরা বিভিন্ন মিথ্যা ও রাজনৈতিক প্রতিহিংসামূলক মামলায় জর্জরিত। জাতীয়তাবাদী শক্তির প্রতীক এসময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে ভুয়া ও জালিয়াতি করে সাজানো মামলায় জড়িয়ে হয়রানি করার জন্য প্রতি সপ্তাহে কয়েকদিন আদালতে হাজিরা দিতে হচ্ছে।
এছাড়াও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান, বিএনপি মহাসচিব, জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্যবৃন্দসহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দকে প্রায় সারাবছরই আদালতে হাজিরা দিতে ব্যস্ত থাকতে হয়েছে।
‘নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে বিএনপির পরাজয় নিশ্চিত’ ওবায়দুল কাদেরের এমন বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় রিজভী বলেন, যদি তাই হয় তাহলে ওবায়দুল কাদের সাহেবরা নিরপেক্ষ নির্বাচন দিতে ভয় পান কেনো? ভোটারবিহীন নির্বাচনের মাধ্যমে দেশকে গণতন্ত্র হীনতার গভীর খাদের দিকে ঠেলে দিলেন কেনো? বর্তমান ভোটারবিহীন সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে তাদের গণবিরোধী কার্যক্রমে গোটা দেশ আজ অন্ধকারে নিমজ্জিত। নানা কেলেঙ্কারির হোতা বর্তমান সরকার এবং ‘বাহিরে ফিটফাট, ভিতরে সদরঘাট-নির্বাচন কমিশন’ এর অধীনে কখনোই অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে পারে না। বছরের প্রথম দিনে জনগণের প্রত্যাশা নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে আগামী জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*