Monday , 25 January 2021
আপডেট
Home » খেলাধুলা » স্বাধীনতা কাপের লোগো উন্মোচন, মাঠে গড়াচ্ছে আগামীকাল
স্বাধীনতা কাপের লোগো উন্মোচন, মাঠে গড়াচ্ছে আগামীকাল

স্বাধীনতা কাপের লোগো উন্মোচন, মাঠে গড়াচ্ছে আগামীকাল

সুমন চৌধুরী : এক বছর পর আবারও মাঠে গড়াচ্ছে স্বাধীনতা কাপ ফুটবল। প্রিমিয়ার লিগে খেলা ১২টি দল অংশ নিচ্ছে ঘরোয়া ফুটবলে মৌসুমসূচক খ্যাত এই টুর্নামেন্টে। যদিও এবার মৌসুমের শেষ টুর্নামেন্ট এটি। ব্রাদার্স ইউনিয়নের আপত্তি সত্বেও বিদেশি খেলোয়াড় ছাড়াই শুরু হচ্ছে অস্টম আসর। সোমবার বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাকক্ষে ওয়ালটন স্বাধীনতা কাপের লোগো উন্মোচন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুস সালাম মুর্শেদী, পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন গ্রুপের অপারেটিভ ডিরেক্টর এফএম ইকবাল বিন আনোয়ার (ডন)। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ, কো-স্পন্সর প্রিমিয়ার ব্যাংকের এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট ও মতিঝিল শাখার ব্র্যাঞ্চ ম্যানেজার সিফাত আহমেদ চৌধুরী, সেইলর-ইপিলিয়ন গ্রুপের সিনিয়র এক্সিকিউটিভ (মার্কেটিং)মাশরুর রহমান এবং একেএম নজরুল ইসলাম, সিনিয়র এক্সিকিউটিভ, ট্রেজার সিকিউরিটি লিঃ।
মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৩টায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে উদ্বোধনী ম্যাচে চট্টগ্রাম আবাহনীর মুখোমুখি হবে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব। চট্টগ্রাম আবাহনী বর্তমান চ্যাম্পিয়ন আর সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব প্রিমিয়ার লিগের নবাগত দল।
টুর্নামেন্ট মাঠে গড়ানোর আগের দিন সোমবার বাফুফে ভবনে ওয়ালটন স্বাধীনতা কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টে’র লোগো উন্মোচন করা হয়েছে। পৃষ্ঠপোষক হিসাবে গত বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সঙ্গে ওয়ালটনের চুক্তি স্বাক্ষর হয়। সেদিনই টুর্নামেন্টের ড্র অনুষ্ঠিত হয়।
প্রায় ৬০ লাখ টাকা বাজেটের টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন দল ৫ লাখ ও রানার্সআপ দল ৩ লাখ টাকা প্রাইজমানি পাবে। এ ছাড়া অংশগ্রহণকারি প্রতিটি দল পাবে ২ লাখ টাকা করে। টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ গোলদাতাকে একটি ফ্রিজ, টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড়কে টেলিভিশন দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে ওয়ালটন।
১২টি দলকে চারটি গ্রুপে বিভক্ত করে লিগ পর্বের খেলা অনুষ্ঠিত হবে। চার গ্রুপ থেকে শীর্ষ আটটি দল কোয়ার্টার ফাইনালে খেলবে। সেখান থেকে চারটি দল সেমিফাইনাল ও দুটি দল ফাইনাল খেলবে।
এ গ্রুপে রয়েছে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব, রহমতগঞ্জ মুসলিম ফ্রেন্ডস সোসাইটি ও মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। বি গ্রুপে রয়েছে ব্রাদার্স ইউনিয়ন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্র ও ফরাশগঞ্জ স্পোর্টিং ক্লাব। সি গ্রুপে রয়েছে ঢাকা আবাহনী লিমিটেড, শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র ও টিম বিজেএমসি। আর ডি গ্রুপে রয়েছে চট্টগ্রাম আবাহনী, আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ ও সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব।
১৯৭২ সালে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হয় স্বাধীনতা কাপ ফুটবল। এরপর নানা জটিলতায় দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর ১৯৯২ সালে আয়োজন করা হয় দ্বিতীয় আসরের। এরপর আবারও লম্বা বিরতি। এক যুগেরও বেশি সময় পর ২০০৫ সালে অনুষ্ঠিত হয় স্বাধীনতা কাপ ফুটবলের তৃতীয় আসর। পাঁচ বছর বিরতি দিয়ে ২০১১ সালে হয় চতুর্থ আসর। এরপর ২০১৩ তে পঞ্চম ও ২০১৪ সালে হয় ষষ্ঠ আসর। সবশেষ ২০১৬ সালে হয়েছে সপ্তম আসর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*