Wednesday , 2 December 2020
আপডেট
Home » শিল্প ও বাণিজ্য » জনগনের চোখের জ্যোতি ফিরিয়ে দিচ্ছে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড-ফ্রেন্ডশিপ
জনগনের চোখের জ্যোতি ফিরিয়ে দিচ্ছে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড-ফ্রেন্ডশিপ

জনগনের চোখের জ্যোতি ফিরিয়ে দিচ্ছে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড-ফ্রেন্ডশিপ

আজকের প্রভাত প্রতিবেদক : ৪০০ চোখের ছানি পড়া উপকূলীয় মানুষের চোখের সার্জারি করবে ফ্রেন্ডশিপ, এতে অর্থায়ন করছে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক
মঙ্গলবার রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাও হোটেলে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক এবং ফ্রেন্ডশিপ এর মধ্যে একটি সমঝোতা স্বাক্ষরিত হয়েছে ।
এসময় স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের পক্ষ থেকে স্বাক্ষর করেন স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের সিইও নাসের এজাজ বিজয়,এবং ফ্রেন্ডশিপ এর পক্ষে স্বাক্ষর করেন ফ্রেন্ডশিপ এর প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক রুনা খান।
এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের কর্পোরেট অ্যাফেয়ার্স প্রধান, বিটপী দাস চৌধুরী এবং গোলাম রসুল,পরিচালক ও স্বাস্থ্য প্রধান, ফ্রেন্ডশিপ।
এই প্রকল্পের অধীনে ফ্রেন্ডশিপ আগামী এক বছরে ৪০০ রোগীদের ছানি অপারেশন করার পরিবল্পননা নিয়েছে। এজন্য বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় ৫ টি ক্যাম্প স্থাপন করবে ফ্রেন্ডশিপের ভাসমান হাসপাতাল রঙধনু ফ্রেন্ডশিপ হাসপাতাল (আরএফএইচ)।
কুয়াকাটা (পটুয়াখালী), কুতুবদিয়া (কক্সবাজার), মংলা ও চালনা (খুলনা) এবং হাটিয়া (নোয়াখালী) তে হবে এই ক্যাম্পগুলো।
এই বছর স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড প্রকল্পের ১৫ তম বছর উৎযাপন করছে যা ২০০৩ সাল থেকে শুরু করে ৩৬ টি দেশে ১৫০ মিলিয়ন লোককে সাহায্য করেছে। ৪০০ টি ছানি অপারেশন করতে করছে ফ্রেন্ডশিপ এর ভাসমান হাসপাতাল জাহাজ রঙধনু ফ্রেন্ডশিপ হাসপাতাল থেকে। ২০১৩ সালে অপারেশন শুরু করার পরে রঙধনু ফ্রেন্ডশিপ হাসপাতাল ১৬৫,০০০ এরও বেশি প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করেছে।
স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের সিইও জনাব নাসের এজাজ বিজয় বলেন, এক, দুই বা তিন বছর নয়, ১৬ বছর ধরে ফ্রেন্ডশিপ এই কাজ করছে। এই ক্ষেত্রে অভিজ্ঞতা, প্রতিশ্রুতি এবং আত্মনিবেদন লাগে। যা তাদের আছে। ফ্রেন্ডশিপ এর সঙ্গে এই প্রকল্পে শামিল হতে পেরে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক খুশি। স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড বাংলাদেশের প্রাচীনতম আর্থিক প্রতিষ্ঠান। ব্যাংকিংসহ সব সেক্টরে ১১২ বছর ধরে জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়ে কাজ করে যাচ্ছে।
আমাদের সমাজের বেশিরভাগ ঝুঁকিপূর্ণ অংশে পৌঁছানোর জন্য দেশ জুড়ে বিনিয়োগে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ স্টান্ডার্ড চার্টার্ড।
তিনি আরও যোগ করেছেন, সিয়িং ইজ বিলিভিং আমাদের ফ্ল্যাগশিপ প্রোগ্রাম। এটি ২০০৫ সালে প্রথম ছানি অপারেশন শুরু করে। গত ১৫ বছরে মধ্যে ১৫০ মিলিয়ন লোক এর সুফল পেয়েছে। তখন থেকে ৬০,০০০ অস্ত্রোপচার করা হয়েছে। এই প্রকল্পটি সক্ষমতা বিনির্মাণের সাথে সম্পর্কিত। সেই থেকে ব্যাংকিং এবং স্বাস্থ্য পাশাপাশি চলছে। ফ্রেন্ডশিপ এটা বোঝে এবং তাদের প্রচেষ্টার মাধ্যমে সক্ষমতা গড়ে তোলার সুযোগ প্রদান করে।
প্রতিষ্ঠাতা এবং নির্বাহী পরিচালক, ফ্রেন্ডশিপ রুনা খান বলেন, মানুষের স্বাস্থ্য সম্পর্কে একটি পরিসংখ্যান সবকিছু ব্যাখ্যা করতে পরেনা।সময়মত কাজ করতে পারাটাই এখানে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। ফ্রেন্ডশিপ সেটা করতে পারছে কারণ এই প্রতিষ্ঠানের শক্তি তার পরিবারের মধ্যে । এই বৃহৎ পরিবারের সদস্যরা এই পরিবর্তন দেখতে এবং সেটার অংশ হতে চান। তারা একটি প্রকল্প শেষ হলেই আমাদের ছেড়ে যান না। এই পরিবারের
অংশ যারা সবাইকে ধন্যবাদ, তারা এটা কি এটি করা। সেকারনেই ফ্রেন্ডশিপ এতো মানুষকে সাহায্য করতে পারছে।
স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের কর্পোরেট অ্যাফেয়ার প্রধান বিটপী দাস চৌধুরী বলেন, রঙধনু জনগণকে একটি বড় জনস্বাস্থ্য সমস্যা এড়ানোর জন্য কাজ করে একটি অনন্য উদাহরন তৈরি করেছে। স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ২০০৩ সাল থেকে ৩৬ টি দেশের দৃষ্টিশক্তিহীন ব্যক্তিদের সাহায্য করছে এই প্রকল্পের অংশ হতে পেরে আমি আনন্দিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*