Monday , 25 January 2021
আপডেট
Home » খেলাধুলা » বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা ফুটবলের উজানটিয়া ও দোহারো প্রাইমারী স্কুল চ্যাম্পিয়ন
বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা ফুটবলের উজানটিয়া ও দোহারো প্রাইমারী স্কুল চ্যাম্পিয়ন

বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা ফুটবলের উজানটিয়া ও দোহারো প্রাইমারী স্কুল চ্যাম্পিয়ন

ক্রীড়া প্রতিবেদক : বুধবার চৈত্রের ভর দুপুরে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ও বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিব গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল আরও একবার মনে করিয়ে দিল সেই স্মৃতি। এদিন মাঠে ফুটবল নিয়ে মেতে উঠেছিল দুই দল বালক আর দুই দল বালিকা। বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্ট অষ্টম আসরে ফাইনালে পাবনার সাথিয়ার ভুলবাড়িয়া সরকারি প্রথমিক বিদ্যালয়কে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে কক্সবাজারের পেকুয়ার পূর্ব উজানটিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। অপরদিকে বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিব গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্টে সপ্তম আসরের ফাইনালে ময়মনসিংহের নন্দাইলের পাঁচরুখী সরকারি প্রথমিক বিদ্যালয়কে হারিয়ে শিরোপা জিতেছে ঝিনাইদহের শৈলকুপার দোহারো সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।বালক বিভাগের ফাইনালে উজানটিয়া ২-১ গোলে পাবনার সাথিয়ার ভুলবাড়িয়া সরকারি প্রথমিক বিদ্যালয়কে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। এর আগে উজানটিয়া স্কুল ১৫ ম্যাচে ৫০ গোল করে। কিন্তু এদিন ফাইনালেই একমাত্র গোলটি হজম করে তারা। নির্ধারিত সময়ে খেলার স্কোরলাইন ছিল ১-১। অতিরিক্ত সময়ে ২-১ গোলে জিতে চ্যাম্পিয়ন হয় স্কুলটি। উজানটিয়ার রহমত মিয়া ২৬ ও আইনুল করিম ৫০+৭ মিনিটে এবং ভূলবাড়িয়া স্কুলের আতিয়ার রহমান ৪৯ মিনিটে ১টি করে গোল করে। একই মাঠে অনুষ্ঠিত বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিব গোল্ডকাপের ফাইনালে টাইব্রেকারে দোহারো ৫-৪ গোলে ময়মনসিংহের নন্দাইলের পাঁচরুখী সরকারি প্রথমিক বিদ্যালয়কে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন শিরোপা লাভ করে। মূল পর্বের লড়াই ১-১ গোলে ড্র ছিলে। বালিকা বিভাগে শিরোপা জেতে ঝিনাইদহের শৈলকুপার দোহারো সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। শেষ পর্যন্ত টাইব্রেকারে ৫-৪ গোলে হারায় ময়মনসিংহের নান্দাইলের পাঁচরুখী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়কে। খেলা শেষে প্রধান অতিথি হিসেবে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। চ্যাম্পিয়ন দলের কোচ ও প্রত্যেক খেলোয়াড়কে দেয়া হয়েছে ১০ হাজার টাকা করে অর্থ পুরস্কার। সেই সঙ্গে দলগতভাবে ট্রফি ছাড়াও দেয়া হয়েছে এক লাখ টাকার অর্থ পুরস্কার। রানার্স-আপ দলের খেলোয়াড়রা পেয়েছে সাড়ে সাত হাজার টাকার অর্থ পুরস্কার এবং দলগতভাবে ৫০ হাজার টাকা। এ ছাড়া সেরা খেলোয়াড় ২৫ হাজার এবং সর্বোচ্চ গোলদাতা সমান পরিমাণ অর্থ পুরস্কার লাভ করেছে।                                                                                                                                                            বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবলের সেরারা:
চ্যাম্পিয়ন: কক্সবাজারের পেকুয়ার পূর্ব উজানটিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় (এক লাখ টাকা)
রানার্সআপ: সাঁথিয়ার ভূলবাড়িয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়
সেরা খেলোয়াড়: মোহাম্মদ শিহাব (ভুলবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সাঁথিয়া, পাবনা; ২৫ হাজার টাকা ও ক্রেস্ট
সর্বোচ্চ গোলদাতা: রিফাত মিয়া (৩ গোল, পূর্ব উজানটিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পেকুয়া, কক্সবাজার, চট্টগ্রাম; ২৫ হাজার টাকা ও গোল্ডেন বুট)

বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবলের সেরারা:
চ্যাম্পিয়ন: ঝিনাইদহের শৈলকুপার দোহারো সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় (এক লাখ টাকা)
রানার্সআপ: ময়মনসিংহের নান্দাইলের পাঁচরুখী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়
সেরা খেলোয়াড়: স্বরলিকা পারভীন (বাঁশখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ভুরুঙ্গামারী, কুড়িগ্রাম; ২৫ হাজার টাকা ও ক্রেস্ট)
সর্বোচ্চ গোলদাতা: তাহমিনা খাতুন উন্নতি (৭ গোল, দোহারো মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, শৈলকুপা, ঝিনাইদহ; ২৫ হাজার টাকা ও গোল্ডেন বুট)
খেলাটি উপভোগ করতে চার স্কুলের শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা গ্যালারি মাতিয়ে রাখেন। সংখ্যাটা ছিল প্রায় ১৫ হাজার।
উল্লেখ্য, সারাদেশ থেকে ছেলেদের ৬৪,৬৮৮ এবং মেয়েদের ৬৪,৬৮৩টি স্কুল অংশ নেয় এই টুর্নামেন্টে। অংশগ্রহণকারী খেলোয়াড় ছিল বালক বিভাগে ১০ লাখ ৯৯ হাজার ৬৯৬ জন এবং বালিকা বিভাগে ১০ লাখ ৯৯ হাজার ৬১১ জন। গত ১৯ থেকে ২৫ মার্চ পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে সাত বিভাগের টুর্নামেন্ট দুটি বিভাগীয় পর্যায়ের ১৪ চ্যাম্পিয়ন দল নিয়ে জাতীয় পর্যায়ের খেলা অনুষ্ঠিত হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*