Wednesday , 14 April 2021
আপডেট
Home » আপডেট নিউজ » এমএনপি চালু নিয়ে অনিশ্চয়তা, বিটিআরসির নতুন নির্দেশনা
এমএনপি চালু নিয়ে অনিশ্চয়তা, বিটিআরসির নতুন নির্দেশনা

এমএনপি চালু নিয়ে অনিশ্চয়তা, বিটিআরসির নতুন নির্দেশনা

আজকের প্রভাত প্রতিবেদক : বর্তমান মোবাইল নম্বার অপরিবর্তিত রেখে অপারেটর বদলের সুযোগ বা এমএনপি চালুর আগ মুহূর্তে নতুন নির্দেশনা দিয়েছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।
নতুন এই নির্দেশনার কারণে এমএনপি সেবা চালুর সময় পেছাতে পারে বলে জানিয়েছে দেশের তিন মোবাইল অপারেটর।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত ২৫ জুন বিটিআরসি অপারেটরগুলোর কাছে একটি নির্দেশনা পাঠায়। নির্দেশনায় এমএনপির ক্ষেত্রে গেটওয়েগুলো যে সংযোগের দায়িত্ব পালন করার কথা তা এখন মোবাইল অপারেটরদের করতে বলা হয়েছে। এর ফলে মোবাইল অপারেটরগুলোকেই সংশ্লিষ্ট কারিগরি উন্নয়নের কাজ করতে হবে। কিন্তু এর জন্য কোনো অতিরিক্ত সময়ও দেওয়া হয়নি অপারেটরদের।
মোবাইল ফোন অপারেটরদের সংগঠন অ্যামটব জানিয়েছে, যখন এমএনপি সেবা দিতে মোবাইল ফোন অপারেটররা চুড়ান্ত প্রস্তুতি নিচ্ছে এবং বিভিন্ন ধরনের টেস্টিং করছে ঠিক সে সময় বিটিআরসির একটি নির্দেশনা পুরো প্রক্রিয়াকে ব্যহত হওয়ার মতো অবস্থায় ফেলে দিয়েছে।
অ্যামটব বলছে, নির্দেশনায় কল আদান-প্রদান ব্যবস্থায় যে পরিবর্তনের কথা বলা হয়েছে, তা আইএলডিটিএস নীতিমালা ও এমএনপি নীতিমালার পরিপন্থী। গেটওয়ের দায়িত্ব সেলফোন অপারেটরদের ওপর চাপিয়ে দেওয়া হলে এ দুটি নীতিমালার সংশ্লিষ্ট ধারার ব্যত্যয় ঘটবে। আইএলডিটিএস নীতিমালার ধারা ৫.২ ও ৬.৪ এবং এমএনপি গাইডলাইনের ৫.৩ ও সিডিউল ৭ (৪) ধারা অনুযায়ী এই দায়িত্ব সংশ্লিষ্ট গেটওয়েগুলোর।
এর ফলে কারিগরিভাবেও এ নির্দেশনায় জটিলতা তৈরির আশঙ্কা রয়েছে বলেও জানিয়েছে অ্যামটব।
কারণ হিসেবে সংগঠনটি জানিয়েছে, এমএনপি সেবাটি চালুর লক্ষ্যে এরই মধ্যে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে সেলফোন অপারেটররা। সিস্টেম ইন্টিগ্রেশন ও টেস্টিংয়ের কাজ শুরু হয়েছে গত ২৪ জুন থেকে। ৮ জুলাই থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে ইউজার অ্যাকসেপট্যান্স টেস্ট (ইউএটি) শুরু হওয়ার কথা। আর সব কিছু ঠিক থাকলে ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে সেবাটি চালু করা সম্ভব হতো। নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে এমএনপি চালু করতে হলে টপোলজিতে নতুন করে আর কোনো পরিবর্তন সম্ভব নয়।
নতুন এ নির্দেশনার ফলে এমএনপি সেবা চালুর ক্ষেত্রে নিয়ন্ত্রণ, কারিগরি ও বাণিজ্যিকভাবে কী ধরনের প্রভাব পড়বে তা জানিয়ে সম্প্রতি বাংলালিংক, গ্রামীনফোন ও রবির শীর্ষ কর্মকর্তারা নিয়ন্ত্রক সংস্থার কাছে যৌথ স্বাক্ষরে একটি চিঠি দিয়েছে।
আগামী ১ আগস্ট থেকে এমএনপি সেবা দেশে চালু হওয়ার কথা রয়েছে। সেবাটি চালু হলে মোবাইল গ্রাহকরা তাদের প্রয়োজন ও পছন্দ অনুযায়ী যে কোনো মোবাইল কোম্পানির সেবা নিতে পারবেন। সেবায় সন্তুষ্ট না হলে কিংবা অন্য কোম্পানির বিশেষ সেবা নিতে চাইলে নম্বর পরিবর্তন না করেই যে কোনো কোম্পানির সেবা গ্রহণের সুযোগ পাবেন গ্রাহকরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*