Tuesday , 20 April 2021
আপডেট
Home » আপডেট নিউজ » ইনোভেশন হ্যাকাথনের আয়োজন করলো বিডিঅ্যাপস
ইনোভেশন হ্যাকাথনের আয়োজন করলো বিডিঅ্যাপস

ইনোভেশন হ্যাকাথনের আয়োজন করলো বিডিঅ্যাপস

আজকের প্রভাত প্রতিবেদক : দেশের বৃহত্তম মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন প্লাটফর্ম বিডিঅ্যাপস সম্প্রতি ইনোভেশন হ্যাকাথন’র আয়োজন করেছে। রাজধানীর রবি কর্পোরেট অফিসে ২৪ ঘণ্টাব্যাপী এ হ্যাকাথন অনুষ্ঠিত হয়। মোট ১৪টি দলের ৪১ জন প্রতিযোগী চূড়ান্ত হ্যাকাথনে অংশগ্রহণ করেন।
হ্যাকাথনে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে আহসানউল্লাহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিজিটালএমসিকিউ দল। অন্যদিকে চট্টগ্রামের ইন্টারন্যাশনাল ইসলামিক ইউনিভার্সিটি’র ব্রাদারহুড টিম প্রথম রানার আপ এবং ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের এফসোসাইটি টিম দ্বিতীয় রানার আপ হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে।
বিজয়ী দলগুলোর অ্যাপ্লিকেশনগুলো ছড়িয়ে দিতে সহায়তার লক্ষ্যে পুরস্কার হিসেবে নগদ অর্থ প্রদান করা হয়েছে। বিজয়ী ও অংশগ্রহণকারী সবার অ্যাপ জনপ্রিয় ও ব্যবসাসফল করতে তাদের প্রশিক্ষণ ও সহায়তা প্রদান করবে বিডিঅ্যাপস। এছাড়া বিভিন্ন অংশীজনদের সামনে বিজয়ীরা যাতে তাদের অ্যাপগুলো তুলে ধরতে পারেন এজন্য একটি প্ল্যাটফরম প্রদান করবে বিডিঅ্যাপস; যাতে তারা ডিজিটাল উদ্যোক্তা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার সুযোগ পান।
হ্যাকাথনের শিল্প-সংশ্লিষ্ট বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন উইন কর্পোরেট’র সিইও ও উইন মিয়াকি’র চেয়ারম্যান বিশিষ্ট কৃষিবিদ ড. কাশফিয়া আহমেদ, ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ মেন্টাল হেলথ’র সহযোগী অধ্যাপক ড. হেলাল উদ্দিন আহেমদ, ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশ’র সহযোগী অধ্যাপক ও প্রোগ্রাম হেড অফ সিএসই কাজী হাসান রবিন এবং দৈনিক ইত্তেফাকের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ও অনন্যা’র সম্পাদক তাসমিমা হোসেন।
ব্যবসা-সংশ্লিষ্ট বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন রবি’র ডিজিটাল সার্ভিসেস’র ফিন্যান্স অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজি’র জেনারেল ম্যানেজার মহান্নাদ আলম খান, ওটিটি ইকোসিস্টেম’র জেনারেল ম্যানেজার ফয়সাল আহমেদ ও ডিজিটাল অ্যাডভার্টাইজিং’র জেনারেল ম্যানেজার মো. সানজিদ হোসেন।
২৪ ঘন্টাব্যাপী হ্যাকাথনে অংশগ্রহণকারীদের কৃষি, স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও লাইফস্টাইল- এই চারটি বিষয়ের ওপর সমস্যা সমাধান করতে বলা হয়েছিলো। টেলিযোগাযোগ গ্রাহকরা ব্যবহার করেন এমন ফিচারের সমন্বয় এবং অ্যাপটিকে আরো গ্রাহক-বান্ধব করার জন্য প্রয়োজনীয় পরিবর্তন করার পর অ্যাপস্টোরে তারা তাদের অ্যাপটি আপলোড এবং বিচারকদের সামনে উপস্থাপন করেন।
রবি’র চিফ ডিজিটাল সার্ভিসেস অফিসার শিহাব আহমেদ বিজয়ীদের নাম ঘোষণা এবং তাদের মধ্যে পুরস্কার হিসেবে নগদ অর্থ প্রদান করেন। এ সময় তিনি বলেন, দেশের প্রতিশ্রুতিশীল তরুণ অ্যাপ ডেভেলপারদের সহায়তায় বিডিঅ্যাপস ইতোমধ্যে দেশের বৃহত্তম অ্যাপ প্লাটফর্মে পরিণত হয়েছে। ডিজিটাল উদ্যোক্তা হওয়ার স্বপ্ন পুরণে বিডিঅ্যাপস তাদের পছন্দের অ্যাপস প্লাটফর্ম হিসাবে আস্থা অর্জন করেছে। মোবাইল ফোনের গ্রাহকদের জন্য উদ্ভাবনী অ্যাপ্লিকেশন সরবরাহ করার জন্য স্থানীয় অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপমেন্ট ইকোসিস্টেমের উন্নয়নে নেয়া পদক্ষেপ অব্যহত রাখবে বিডিঅ্যাপস।” রবি’র আইওটি অ্যান্ড প্রোডাক্ট ইনোভেশন’র ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. শওকত কাদের চৌধুরী ইনোভেশন হ্যাকাথনের উদ্বোধন করেন।
পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রবি’র এম-মানি’র ভাইস প্রেসিডেন্ট দেওয়ান নাজমুল হাসান, আইওটি অ্যান্ড প্রোডাক্ট ইনোভেশন’র জেনারেল ম্যানেজার মোহাম্মদ মুসাব্বির এবং আইওটি অ্যান্ড প্রোডাক্ট ইনোভেশন’র ম্যানেজার মো. সালাহ উদ্দিন।
রবি আজিয়াটা লিমিটেড’র পাশাপাশি হ্যাকাথন’টির টেকনিক্যাল পার্টনার ছিল শ্রীলঙ্কার এইচসেনিড মোবাইল সল্যুশন (প্রাঃ) লিমিটেড এবং ইভেন্ট পার্টনার ছিল মিয়াকি মিডিয়া লিমিটেড।
শুরুতে ২২৮টি দলের ৬৫৯ জন অ্যাপস ডেভেলপার হ্যাকাথনে অংশগ্রহণের আগ্রহ প্রকাশ করেন। পরবর্তীতে উদ্ভাবনী ধারণা, অ্যাপ তৈরির প্রস্তুতি, গ্রাহক-বান্ধব, ব্যবসায়িক সম্ভাবনা ও অবকাঠামোগত সক্ষমতার ওপর ভিত্তি করে ১৪টি দলকে চূড়ান্ত হ্যাকাথনে অংশগ্রহণের জন্য নির্বাচন করা হয়।
বিডিঅ্যাপস বাংলাদেশের বৃহত্তম মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন প্লাটফর্ম। অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপাররা এই প্লাটফর্মে তাদের উদ্ভাবনী অ্যাপ্লিকেশন প্রর্দশন করতে এবং স্থানীয় মোবাইল গ্রাহকদের কাছে বিক্রি করতে পারেন। এটি বাংলাদেশী অ্যাপ ডেভলপারস ও মোবাইল গ্রাহকদের মধ্যে সেতুবন্ধন তৈরি করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*