Friday , 23 April 2021
আপডেট
Home » আপডেট নিউজ » সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে নেপালের বিরুদ্ধে শেষ সময়ের গোলে জয় পেল পাকিস্তান

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে নেপালের বিরুদ্ধে শেষ সময়ের গোলে জয় পেল পাকিস্তান

ক্রীড়া প্রতিবেদক : আজ মঙ্গলবার (৪ সেপ্টেম্বর) বিকালে ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত দক্ষিণ এশীয় ফুটবলের বিশ্বকাপ খ্যাত এই টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী ম্যাচে নেপালকে ২-১ গোলে হারিয়েছে পাকিস্তান। নেপালের বিরুদ্ধে শেষ সময়ের গোলে জয় পেল পাকিস্তান এই জয়ে প্রায় তিন বছর পর আন্তর্জাতিক ফুটবলে নিজেদের প্রত্যাবর্তন স্বরণীয় করে রাখল পাক ফুটবল দল।
এদিন ম্যাচের শুরু থেকে আকমণে এগিয়ে ছিলো নেপাল। ম্যাচের ৩ মিনিটে নেপালের অনন্ত তামাং বল নিয়ে বক্সে ঢুকে চীপ করলেও গোলরক্ষককে পরাস্ত করতে ব্যর্থ হন। ২৩
মিনিটে বা প্রান্ত থেকে বিমল গাত্রি মাগারের কোনাকোনি শট অল্পের জন্য জড়ায়নি জালে। পরের মিনিটেই ডান প্রান্ত থেকে দলীয় অধিনায়ক বিরাজ মহারজনের শট সরাসরি গিয়ে পড়ে পাকিস্তানের গোলরক্ষকের হাতে।
৩৪ মিনিটে বিরাজ মহারজন নিজেদের বক্সে ফাউল করেন পাকিস্তানের মোহাম্মদ রিয়াজকে। পেনাল্টির বাশি বাজান রেফারী হাসান মাহমুদ আরাফাহ। পাকিস্তানের হাসান বশিরের কোনাকোনি শট জড়ায় জালে। ম্যাচে লিড নেয় পাকিস্তান (১-০)। ৩৯ মিনিটে বা প্রান্ত থেকে ফরোয়ার্ড মেহমুদ খানের শট খুঁজে পায়নি জাল।
৪০ মিনিটে সুযোগ এসেছিলো নেপালেরও। কর্ণার থেকে বক্সে জটলায় বল পেয়ে দারুণ হেড নিয়েছিলেন ডিফেন্ডার সুমন এরিয়াল। কিন্তু বল জালে জড়ায়নি। প্রথমার্ধের ইনজুরি টাইমে আরো একটি দারুণ সুযোগ হাতছাড়া করেছে নেপাল ডান প্রান্ত থেকে বিমল গাত্রির ক্রস ছোট বক্সে পেয়েছিলেন নওয়াগ শ্রেষ্ঠ। কিন্তু পাকিস্তানী ডিফেন্ডারদের চাপের মুখে নিশ্চিত গোল থেকেই বঞ্চিত করেন দলকে। ফলে প্রথমার্ধ পিছিয়ে থেকেই বিশ্রামে যায় নেপাল।
বিরিতির পর সমতা ফেরাতে আক্রমণ জোরদার করে নেপাল। অপরদিকে ব্যবধান বাড়াতে তৎপর হয় পাকিস্তান। ৭৪ মিনিটে ব্যবধান দিগুণ করতে পারতো পাকিস্তান বক্সের প্রায় ত্রিশ গজ দূর থেকে ডান পায়ের উচু শট নেন বদলী ফরোয়ার্ড সাদউল্লাহ। বল বারে লেগে ফেরত আসে। দুর্ভাগ্য পাকিস্তানের।
তবে পিছিয়ে পড়লেও আত্মবিশ্বাস হারায়নি নেপাল শিবির। সমতায় ফেরার আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে গেছে। যার ফলে ৮২ মিনিটে এক গোল করতে সক্ষমও হয়েছে। সুজল শ্রেষ্ঠর কর্ণার থেকে বল পেয়ে বদলী মিডফিল্ডার নিরঞ্জন খাদকা হেড নেন। বক্সে বল পান বিমল গাত্রি । পোস্টের খুব কাছ থেকে বা পায়ের জোড়ালো শটে লক্ষ্যভেদ করেন বিমল (১-১)।
পুরো ৯০ মিনিটে ম্যাচটি অমীমাংসীত থাকলেওইনজুরি টাইমের শেষে নাটকীয় মোড় নেয়। (৯০+৪) মিনিটে আদিলের ক্রস বক্সে পেয়ে হেড দিয়ে সতীর্থের উদ্দেশ্যে পাঠান সাদুল্লাহ। বল পেয়ে হেডে নেপালের গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন মোহাম্মদ আলী। আর এই গোলের কিছুক্ষণ পরই শেষ বাঁশি বাজান রেফারী। পয়েন্ট খুইয়ে মাঠ ছাড়ে নেপাল।
এই ম্যাচ দিয়ে প্রায় তিন বছর পর আন্তর্জাতিক ফুটবলে প্রত্যাবর্তন করল পাকিস্তান। ২০১৫ সালের মার্চে আদালতের নিষেধাজ্ঞা আসে পাকিস্তান ফুটবল ফেডারেশনের ওপর। এরপর ১০ অক্টোবর ২০১৭ থেকে ১৩ মার্চ ২০১৮ পর্যন্ত বিশ্ব ফুটবলের শাসক সংস্থা ফিফার নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়ে পাকিস্তান। ২০১৫ সালে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপও খেলতে পারেনি দলটি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*