Wednesday , 12 May 2021
আপডেট
Home » জাতীয় » ঢাকার যানজট নিরসনে ৩ মাসের মধ্যে মাস্টারপ্ল্যান দেয়ার নির্দেশ
ঢাকার যানজট নিরসনে ৩ মাসের মধ্যে মাস্টারপ্ল্যান দেয়ার নির্দেশ

ঢাকার যানজট নিরসনে ৩ মাসের মধ্যে মাস্টারপ্ল্যান দেয়ার নির্দেশ

ডেস্ক রিপোর্ট: ঢাকার যানজট দূর করতে বিশেষজ্ঞদের নিয়ে একটি মাস্টারপ্ল্যান করতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। আগামী তিন মাসের মধ্যে মাস্টারপ্ল্যান আদালতে দাখিল করতে বলা হয়েছে।
জনস্বার্থে দায়ের করা একটি আবেদনের শুনানি নিয়ে রোববার বিচারপতি তারিক উল হাকিমের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চ রুলসহ এ আদেশ দেন।
আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসান। এর আগে গত ১৫ মে ঢাকার যানজট নিরসনে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়। অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসান জনস্বার্থে রিটটি দায়ের করেন।
রিটে স্বরাষ্ট্র সচিব, সড়ক পরিবহন সচিব, পরিকল্পনা সচিব, অর্থ সচিব, পরিবেশ সচিব, রাজউকের চেয়ারম্যান, ঢাকা সিটির দুই মেয়র, পুলিশের আইজি ও ঢাকার পুলিশ বিবাদী করা হয়।
অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসান যুগান্তরকে বলেন, ঢাকার যানজট দূর করতে বিশেষজ্ঞদের নিয়ে একটি মাস্টারপ্ল্যান করতে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। আগামী তিন মাসের মধ্যে মাস্টারপ্ল্যান আদালতে দাখিল করতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া আদালত রুল জারি করেছেন।
‘যানজটে বছরে ক্ষতি ৩৭ হাজার কোটি টাকা’- এই শিরোনামে গণমাধ্যমে প্রকাশিত একটি গবেষণা প্রতিবেদন রিটে সংযুক্ত করা হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, যানজটের কারণে রাজধানীতে একটি যানবাহন ঘণ্টায় যেতে পারে গড়ে ৫ কিলোমিটার। ১২ বছর আগেও এই গতি ছিল ঘণ্টায় ২১ কিলোমিটার। ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটে আটকে থাকার ফলে যাত্রীদের মানসিক চাপ তৈরি হচ্ছে। এই চাপ আবার কাজ করছে অন্যান্য রোগের উৎস হিসেবে।
পাশাপাশি যানজটের কারণে শুধু ঢাকায় দৈনিক ৫০ লাখ কর্মঘণ্টা নষ্ট হচ্ছে। যার আর্থিক ক্ষতি বছরে প্রায় ৩৭ হাজার কোটি টাকা। যানজটের পরিস্থিতি দিন দিন যেভাবে খারাপ হচ্ছে, তাতে আর্থিক ক্ষতির পরিমাণও যে বাড়বে, তা বলা বাহুল্য।
বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকসিডেন্ট রিসার্চ ইনস্টিটিউট (এআরআই) এবং রোড সেফটি ফাউন্ডেশন আয়োজিত সেমিনারে এ প্রতিবেদন তুলে ধরা হয়। বৈঠকে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন এআরআইয়ের পরিচালক অধ্যাপক মো. মোয়াজ্জেম হোসেন। যানজটের আর্থিক ও স্বাস্থ্যগত সমস্যা, যানজটের কারণ, যানজট থেকে উত্তরণের উপায়সহ বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরা হয় প্রবন্ধে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*