Tuesday , 15 June 2021
আপডেট
Home » জাতীয় » খালেদা জিয়ার অবস্থা ‘প্রচণ্ড খারাপ’, স্বজনরাও সাক্ষাৎ পাননি
খালেদা জিয়ার অবস্থা ‘প্রচণ্ড খারাপ’, স্বজনরাও সাক্ষাৎ পাননি

খালেদা জিয়ার অবস্থা ‘প্রচণ্ড খারাপ’, স্বজনরাও সাক্ষাৎ পাননি

নিজস্ব প্রতিনিধি : কারাবন্দি খালেদা জিয়ার অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে কারা কর্তৃপক্ষ তার সঙ্গে পরিবারের সদস্যদের দেখা করতে দেয়নি বলে জানিয়েছে বিএনপি। দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, তাদের চেয়ারপারসনের স্বাস্থ্যের অবস্থা নিয়ে তারা উদ্বিগ্ন।
খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাতের জন্য শুক্রবার বিকালে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন সড়কে কেন্দ্রীয় কারাগারে যান তার বোন সেলিনা ইসলাম, ছোট ভাই শামীম এস্কান্দারের ছেলে অভি, বড় ছেলে তারেক রহমানের শাশুড়ি ইকবাল মান্দ বানু ও তার মেয়ে শাহিনা খান জামান বিন্দুসহ কয়েকজন।
কারা কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে গেলেও তাদের ফিরিয়ে দেওয়া হয় জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, “পরিবারের সদস্যদের তারা বলেছেন, ম্যাডাম উপর থেকে নিচে নামতে পারছেন না। “তার শারীরিক অবস্থা প্রচণ্ড খারাপ হয়ে গেছে বলে মনে হচ্ছে। আমাদেরও দেখা করতে দেওয়া হয়নি।”
প্রায় আড়াই মাস কারাবন্দি খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে নানা আলোচনার মধ্যে বৃহস্পতিবার বিকালেও তার সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে বিফল হয়েছেন মির্জা ফখরুলসহ বিএনপির তিন নেতা। ওই সময় বিএনপিপ্রধানের সঙ্গে দেখা হওয়া ‘সম্ভব নয়’ জানিয়ে তাদের ফিরিয়ে দেয় কারা কর্তৃপক্ষ।
মির্জা ফখরুল বলেন, “কারা কর্তৃপক্ষের কাছে ম্যাডামের এই অবস্থার কথা শুনে পরিবারের সদস্যরা খুবই উদ্বিগ্ন বলে আমাকে জানিয়েছেন। এ বিষয়ে আমরাও উদ্বিগ্ন।”
গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট মামলায় পাঁচ বছরের সাজার রায়ের পর থেকে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে ওই কারাগারে রাখা হয়েছে। সর্বশেষ গত ৬ এপ্রিল মির্জা ফখরুল কারাগারে খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করেছিলেন। এর পরদিনই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য নেওয়া হয় বিএনপি চেয়ারপারসনকে। তার আগে গত ২৯ মার্চ খালেদা জিয়ার সঙ্গে মির্জা ফখরুলের সাক্ষাতের কথা থাকলেও বিএনপিনেত্রীর অসুস্থতার কারণে তা স্থগিত হয়ে যায়।
ওই খবরে বিএনপির উদ্বেগের মধ্যে সরকার পরে খালেদার চিকিৎসায় একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করে। চার সদস্যের এই বোর্ডের সদস্যরা স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে জানান, সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীর অসুস্থতা ‘গুরুতর নয়’।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*