Tuesday , 22 June 2021
আপডেট
Home » আপডেট নিউজ » খাজা রহমতউল্লাহ স্মৃতি ক্লাব কাপ হকিতে ঢাকা আবাহনী চ্যাম্পিয়ন
খাজা রহমতউল্লাহ স্মৃতি ক্লাব কাপ হকিতে ঢাকা আবাহনী চ্যাম্পিয়ন

খাজা রহমতউল্লাহ স্মৃতি ক্লাব কাপ হকিতে ঢাকা আবাহনী চ্যাম্পিয়ন

ক্রীড়া প্রতিবেদক : খাজা রহমতউল্লাহ স্মৃতি ক্লাব কাপ হকি প্রতিযোগিতায় অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ঢাকা আবাহনী লিমিটেড। রোববার মওলানা ভাসানী স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ফাইনালে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করেও আবাহনীর কাছে ১-০ গোলে হার মানতে বাধ্য হয়েছে মেরিনার্স। ২০০৪ সালে ক্লাব কাপ হকির ফাইনালে এই আবাহনীর কাছেই হেরেছিল তারা। এদিন প্রথমবারের মতো ঘরোয়া হকির ফাইনাল ম্যাচ হলো ফ্লাডলাইটের ঝলমলে আলোয়। তবে শুরুটা সঠিক সময়ে হলো না। কালবৈশাখীর ঝড়ের কবলে পড়ে দেরিতে শুরু হয় খেলা। শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচের প্রথমার্ধ থাকল গোল শূণ্য। তবে দ্বিতীয় ১৬ মিনিটে আক্রমণ করে আবাহনী। মালয়েশিয়ান ফরোয়ার্ড ফিরদাউস বল নিয়ে মেরিনারের ডি-বক্সে ঢুকে সজোরে হিট করলে সেই বল ডাইভ দিয়ে গোলপোস্টে পুশ করেন তার সতীর্থ কৃষ্ণ। কিন্তু গোল বাতিল হয়ে যায়। কারণ দুই আম্পায়ার আলোচনা করে জানান, বল আউটপোস্টে লেগেছে, তাই গোল হবে না।
আবাহনীর খেলোয়াড়রা এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করলেও তাতে কান দেননি আম্পায়ার। ২৫ মিনিটেও আরেকবার ভাগ্য বিড়ম্বনার শিকার হয় আবাহনী। মেরিনার্সের ডি-বক্সের বাইরে থেকে আবাহনীর আশরাফুল ইসলামের হিট মেরিনার্সের এক খেলোয়াড়ের স্টিকে লেগে পোস্টে ঢোকে। গোলের আনন্দ উদযাপনও শুরু করে দেয় আবাহনীর খেলোয়াড়রা। কিন্তু কিন্তু আম্পায়ার সেলিম লাকী এবারও গোল বাতিল করে দেন। কারণ নিয়ম অনুযায়ী হকিতে আত্মঘাতী গোল হয় না। এবং ডি-বক্সের বাইরে থেকে নেয়া হিটেও গোল হয় না। কাজেই এবারও গোলবঞ্চিত হয় ব্লু ব্রিগেড’ দল। প্রথমার্ধে ০-০ স্কোরলাইন নিয়েই বিরতিতে যায় উভয় দল।
দ্বিতীয়ার্ধে পাল্টে যায় দৃশ্যপট। অবশেষে ৪১ মিনিটে ভাগ্য সহায় হয় আবাহনীর। ম্যাচের প্রথম পিসি পায় তারা। ইজওয়ানের সূচনা, সারোয়ার হোসেনের স্টপ এবং সোহানুর রহমান সবুজের গোলে এগিয়ে যায় আবাহনী (১-০)। অবশেষে ‘জেনুইন’ গোল করার আনন্দে ফেটে পড়ে মাহবুব হারুনের শিষ্যরা।
৬৮ মিনিটে পিসি পায় মেরিনার্স। কিন্তু তা থেকে গোল করতে ব্যর্থ হয় তারা। এরপরও বাকি দুই মিনিট আবাহনীর গোলমুখে প্রচন্ড চাপ সৃষ্টি করেও সমতায় ফিরতে পারেনি তারা। জয়ের আশা ধূলিসাৎ হয়ে যায়। হতাশা নিয়ে মাঠ ছাড়ে অলিভার কার্টজের শিষ্যরা। ফাইনাল শেষে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে পুরস্কার বিতরণ করেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন (এমপি)। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খাজা রহমতউল্লাহর সহধর্মীনি নদিরা রহমতউল্লহ। এ সময় ফেডারেশনের অন্যান্য কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*